আইটি লাইনের নতুনেরা প্রথমে যা করবে আর যা করবে না।

বাংলাদেশের আইটি সেক্টর একটি সম্ভবনাময় সেক্টর। অনেক নতুন নতুন মুখ আসছে আইটি সেক্টরে। বিশেষ করে সদ্য ভার্সিটিতে পা দেয়া ছেলে মেয়েরা। ভার্সিটির প্রথম কয়েকটি সেমিস্টার কাটে অনেক সিদ্ধানত হীনতায় অনেকে আইটি নিয়ে অনেক আগ্রহী হয়ে পরে। কিন্তু তখনো বুঝে না আসলে ইনফরমেশন টেকনোলজির জগতটা কি।

কথা না বাড়িয়ে কাজে আসি।

১. আপনি কাজ শিখতে চাচ্ছেন তাহলে ঠিক করুন কি কাজ শিখবেন । হঠাৎ করে কারো কথায় অতি উতসাহিত হয়ে কোন কোর্সে ভর্তি হবেন না। আপনার ক্যারিয়ার কোন দিকে নিতে চান এবং ভবিষ্যত মার্কেট কোনটি চাচ্ছে সেটা খেয়াল করেন চারি পাশে দেখেন। ইন্টারনেট ঘাটেন। হুট করে পিএজপি বা এসইও কাজ শিখতে যাবেন না আপনার আগে ব্যাসিক কিছু  নিজে থেকে জানা লাগবে তারপরে ট্রেইনিং সেন্টারের মুখ বাড়ান। কোন সিনিয়ারের একক কথায় প্রভাবিত হবেন না। নিজে ঠিক করুন আপনি কোনটা পারবেন।

২.  কোন রকম এম এল এম বিশেষ করে টাকা দিয়ে ডুকতে য় এমন কোন কাজে নিজেকে জড়াবেন না। (ডেসটিনি, নিউওয়ে, স্পিক এশিয়া ইত্যাদি থেকে সাবধান)। কোন ক্যাম্পাসের বড় ভাইয়ের মিষ্টি কথায় প্রবাহিত না হয়ে এসব থেকে বিড়ত থাকেন। হয়ত বড় ভাইয়ের সাথে একটু মনমালিন্য হবে কিন্তু ক্যারিয়ার আপনার সুতরাং সিদ্ধান্ত আপনার।বাংলাদেশে অনেকে ইতিমধ্যে তাদের ইনভেস্টকৃত মূলধনও হারিয়েছে। সুতরাং যেখানে সেখানে ইনভেস্ট করলেই যে আপনি আয় করতে পারবেন এমনটি কখনোই ভাববেন না।

৩. পিটিসি এটাকে লাইফে হারাম মনে করে আইটি সেক্টরে প্রবেশ করবেন। কারো মুখে শুনেছেন যে পিটিসি থেকে আমি মাসে এত টাকা কামাচ্ছি তুইও কামাইতে পারবি মাত্র কয়টা টাকা দিয়ে জয়েন কর দেখ ভাগ্য কই নিয়ে যায় । এইসব মার্কামারা ক্লিকার থেকে সাবধান। পিটিসি কথনো আইটি সেক্টরের কোন রকমের আর্নিং সোর্স হতে পারে না। পিটিসি হচ্ছে কোন ওয়েবসাইটে গিয়ে নির্দিষ্ট লিংকে ক্লিক করবেন আর আপনার নামে টাকা জমা হবে। বিষয়টি পুরোপুরি প্রতারণা ছাড়া কিছুই না। এই প্রতারনা তেকে নিজেকে বাচিয়ে চলুন। আপনার রুমমেট যদি মাসে ২০ হাজার টাকাও কামায় তাও সাবধান থাকেন পিটিসি  থেকে।

৪. নতুন কম্পিউটার কিনেছেন ভার্সিটি লাইফ লাপটপও নিয়েছেন তাই না তা এখন মুভি দেখে আর গেমস খেলে সময় নষ্ট করবেন না।

৫. অহেতুক ইন্টারনেটে  সময় নষ্ট করবেন না ।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে ভাই সবইত না করলেন তাহলে কি করব ??

আচ্ছা ভাই সমাধানটা দিচ্ছি

১. আগে কম্পিউটার এর অলিগলি চিনেন। আমার দেথা অনেক মানুষ আছে যারা সিএসসি এর ৭ম মেস্টিারে পরে তাও মেইলটা পাঠাতে পার না। আবার এমনও মানুষ আছে আমার নিজের বাস্তব জীবনের সত্য ঘটনা থেকে বলছি আমার একটা কাজিন আছে বিবিএ ফাইনাল সেমিস্টারে আছে আমার থেকে ভাল ফেজবুক চালাতে পারে কিন্তু নিজের একটা সহজ এসাইনমেন্ট নেট থেকে সার্চ দিয়ে বের করতে পারে না। এ হল অবস্থা। সুতরাং কম্পিউটারের অলিগলি চিনুন। ইন্টারনেট নিয়ে ঘাটুন বিভিন্ন সাইট দেখুন। এস্পিরিমেন্ট চালান।

২. আপনি প্রোগ্রামিক কতটা মাথায় রোড নিতে পারেন সেটা চিন্তা করে প্রোগ্রামিং লাইনে পা দিন। মানে কাজ শেখার জন্য বলছি এটা। কারন একজনকে চিনি যে পিএচপি কোর্স শেষ করে বসে আছে তাও আজও ঠিকমত একটা বেসিক সাইট ডিজাইন করতে পারে না। সুতরাং কেচিং বিষয়টা থেযাল করুন। যদি ভাল মজা পান তাহলে সেটাই করুন। লেখাপড়া মজার উপরে চাপিয়ে দিলেই হবে না। নিজের ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগান।

৩. সবাই পিটিসি করে এইটা করে অইটা করে আপনি কি করেন? আরে ভাই অরা এখন করছে আপনি কিছুদনি পরে করবেন আপনি এখন কাজ শিখবেন। সবাই কম্পিউটারে গেমস খেলে আর মুভি দেখে সময় কাটাবে এটা স্বাভাবিক আপনি বসে বসে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা এইচটিএমএল প্রেকটিস করে। নেটে অনেক টিউটোরিয়াল আছে। আচ্ছা খুজে  না পেলে বাংলা ভাষায় করা রাসেল ভাইয়ের সহজ সহজ ভিডিও টিউটোরিয়াল গুলোএকটা একটা করে নামাইয়া শিখা শুরু করেন। http://www.mediafire.com/?qlr6hjtlripcj#kaxl74b6dblss

৫. ফেজবুকে অতিরিক্ত আসক্ত না হয়ে নেটে বিভিন্ন ব্লগ পড়ুন সুত্য বলছি  অনেক কিছু শিখতে পারবেন। আর একটা জিনিস সব সময় মনে রাখবেন আইটি সেক্টর এমন একটি জায়গা যেখানে চাকরির অভাব নেই কাজ পারলেই চাকরি আপনি পাবেনই। আপনে যেখানেই পড়েরন না কেন কাজ শিখতে থাকুন জব আসবেই।

আজকে অনেক শর্ট করে কিছু বিষয় এই পোষ্টে লিখলাম কারন ভার্সিটির নতুন ব্যাচের ক্লাস শুরু হয়ে গেছে এখনই সময় ক্যারিয়ারের পথ সুগম করার তাই আর সময় নষ্ট না করে এগিয়ে চলুন সামনের দিকে।

Written By
More from uddoktahub

কাকঁড়া চাষ

কাঁকড়া। একেবারেই অবহেলিত এক জলজ প্রাণী। অবহেলিত এই কাঁকড়াই খুলে দিতে পারে...
বিস্তারিত পড়ুন...

Leave a Reply